» আজ পবিত্র আশুরা

প্রকাশিত: ০৯. সেপ্টেম্বর. ২০১৯ | সোমবার

আজ পবিত্র আশুরা

আজ ১০ মহররম, পবিত্র আশুরা। ইসলামের ইতিহাসে শোকাবহ একটি দিন। কারবালার শোকাবহ ঘটনাবহুল এ দিনটি মুসলমানদের কাছে ধর্মীয়ভাবে বিশেষ তাৎপর্যপূর্ণ। ত্যাগ ও শোকের প্রতীকের পাশাপাশি বিশেষ পবিত্র দিবস হিসেবে দিনটি পালন করা হয় মুসলিমবিশ্বে। বাংলাদেশেও আজ যথাযোগ্য মর্যাদায় ও কর্মসূচিতে পবিত্র আশুরা পালন করা হচ্ছে।

পবিত্র আশুরা উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পৃথক বাণী দিয়েছেন। এছাড়া বিরোধীদলীয় নেতা বেগম রওশন এরশাদ, জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের, বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান ও মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরও বাণী দিয়েছেন।

এ উপলক্ষে আজ সরকারি ছুটি। দিবসটি উপলক্ষে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। যে কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে সতর্ক অবস্থানে থাকবে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

হিজরি ৬১ সনের ১০ মহররম মহানবী মুহাম্মদ (সা.)-এর দৌহিত্র ইমাম হোসেইন (রা.) এবং তার পরিবার ও অনুসারীরা সত্য ও ন্যায়ের পক্ষে যুদ্ধ করতে গিয়ে ফোরাত নদীর তীরে কারবালা প্রান্তরে ইয়াজিদ বাহিনীর হাতে শহীদ হন। এ ঘটনা স্মরণ করে মুসলিমবিশ্ব যথাযোগ্য মর্যাদায় দিনটি পালন করে থাকে।

শান্তি ও সম্প্রীতির ধর্ম ইসলামের মহান আদর্শকে সমুন্নত রাখতে তাদের এই আত্মত্যাগ মানবতার ইতিহাসে সমুজ্জ্বল হয়ে রয়েছে। কারবালার এই শোকাবহ ঘটনা ও পবিত্র আশুরার শাশ্বত বাণী সবাইকে অন্যায় ও অত্যাচারের বিরুদ্ধে সোচ্চার হতে এবং সত্য ও সুন্দরের পথে চলতে প্রেরণা জোগায়।

দিবসটি উপলক্ষে রাজধানী ঢাকাসহ দেশব্যাপী বিভিন্ন ধর্মীয় সংগঠন নানা কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে সোমবার বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে বাদ জোহর ওয়াজ ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। আজ হোসনি দালানসহ রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় তাজিয়া মিছিল বের হবে।

১৪ দলের অন্যতম শরিক বাংলাদেশ তরিকত ফেডারেশনের উদ্যোগে দলটির ধানমণ্ডির কার্যালয়ে আলোচনা সভা হবে। পবিত্র আশুরা ও দেওয়ানবাগ শরিফের ৩৪তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে সকাল থেকে আরামবাগে আশেকে রাসূল (সা.) সম্মেলন হবে।

দিবসটি উপলক্ষে বাংলাদেশ রেজভিয়া তালিমুস সুন্নাহ বোর্ডে ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে হবে আলোচনা সভা, মিলাদ মাহফিল, পবিত্র কোরআন পাঠ ও তবররক বিতরণ।

এদিকে তাজিয়া মিছিল উপলক্ষে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পক্ষ থেকে বেশকিছু নির্দেশনা জারি করা হয়েছে। মিছিলে ঢোল বাজিয়ে দা, ছুরি, তলোয়ার ও লাঠিখেলা নিষিদ্ধ করা হয়েছে। এসব দিয়ে কেউ যাতে শরীর রক্তাক্ত করতে না পারে, সে ব্যাপারে তাজিয়া মিছিল আয়োজকদের নিশ্চিত করতে বলা হয়েছে।

১২ ফুটের বেশি বড় নিশান ও আগুনের ব্যবহার করা যাবে না। মিছিলে ব্যাগ, পোঁটলা, টিফিন ক্যারিয়ার বহন করা যাবে না। এমনকি মাঝপথে কেউ মিছিলে অংশ নিতে পারবে না।

Share Button

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ৩৯ বার

Share Button
  • বুধবার ( সন্ধ্যা ৭:২৭ )
  • ১৮ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং
  • ১৯শে মুহাররম, ১৪৪১ হিজরী
  • ৩রা আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ ( শরৎকাল )

সর্বশেষ খবর

Flag Counter