শিরোনাম

» পৈশাচিক খুন : ফেসবুকে ঘৃণার ঝড়

প্রকাশিত: ১৬. অক্টোবর. ২০১৯ | বুধবার

পৈশাচিক খুন : ফেসবুকে ঘৃণার ঝড়

 


এ টি এম তুরাব :

সিলেটে বেড়ে চলছে সামাজিক অপরাধ প্রবণতা। যৌতুকের দাবীতে স্বামী স্ত্রীকে হত্যা, নির্যাতন করছে। পরকীয়া কিংবা দাম্পত্য কলহের জের ধরে স্বামী স্ত্রীকে, বাবা শিশু সন্তানকে নৃশংস কায়দায় খুন করতে পিছপা হচ্ছে না। বাবা মেয়েকে, গাড়ীর চালক যাত্রীকে, জনপ্রতিনিধি প্রতিবন্ধী নারীকে ও বখাটে কর্তৃক স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণ করছে। এমনকি পৃথিবীর আলো দেখার আগেই মাতৃগর্ভে ছিন্নভিন্ন হচ্ছে নবজাতক শিশুর ছোট্ট শরীর। আবার নবজাতক সন্তানকে হাসপাতালে রেখে পালিয়ে যাচ্ছে মা-বাবা। এরকম বীভৎস, নৃশংস ঘটনা সিলেটে হরহামেশা ঘটছে। সর্বশেষ সুনামগঞ্জের দিরাইয়ে শিশু তুহিন হাসানকে নৃশংস কায়দায় খুনের ঘটনায় দেশজুড়ে প্রতিবাদ ও নিন্দার ঝড় উঠেছে। শিশুটির ক্ষতবিক্ষত মরদেহটি গাছে ঝুলিয়ে থাকা ও শরীর ছোরা ঝুলার ভিডিও ও ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হলে দেশজুড়ে ক্ষোভ ও ঘৃণার ঝড় উঠে। এ ঘটনায় নিন্দা ও প্রতিবাদ জানায় বিভিন্ন সামাজিক ও মানবাধিকার সংগঠন। তারা অপরাধীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানান।
ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়ে ড. জাফর ইকবাল তার নিজের ফেইসবুকের ওয়ালে লিখেছেন, ‘এই বাচ্চার হত্যাকারীদের দ্রুত ক্রসফায়ার করা না হলে, হবে মানবতার সাথে চরম অন্যায়। বাবু সোনা ক্ষমা করে দিও, এদেশে জন্ম নেওয়া তোমার কোন অপরাধ ছিলনা।’
আবদুল কাদের তাপাদার লিখেছেন, ‘দিরাইয়ে কেজাউরা গ্রামে নিষ্পাপ শিশু তুহিনের নৃশংস ও হৃদয়বিদারক খুনের ঘটনা আইয়্যামে জাহেলিয়াতকেও হার মানিয়েছে। খুনিদের ধরে এনে স্বল্প সময়ে বিচারের মাধ্যমে ফাঁসি’র কাষ্টে ঝুলানো হোক।
প্রত্যুষ তালুকদার এ ঘটনা নিয়ে তার ফেইসবুক ওয়ালে বেশ কয়েকটি পোষ্টের একটিতে লিখেছেন, ‘ভীষণ কষ্ট হচ্ছে এমন সংবাদ জানান দিতে। কিন্তু তবুও জানান দিলাম… আসুন, একটা নিস্পাপ শিশুকে যে বীভৎস নির্যাতনে হত্যা করেছে তার প্রতিবাদ জানাই….আসুন, চিৎকারে চিৎকারে বিদীর্ণ করি আকাশ, বাতাস…..বিচার চাই!! দ্রুত বিচার!! ধিক্কার!!
‘শিশুদের হত্যা নয়, ভালোবাসতে শিখুন, হোক না সে অন্য কারো ছেলে বা মেয়ে’ লিখেছেন তামিম মাহমুদ।
আক্ষেপ করে মো. রাফি জুবাইদ লিখেছেন, ‘এই দেশে কোন বিচার নাই। এক কথাই বলতে গেলে মানুষ নামের সব নরপিশাচ বাস করতেছে দেশের আনাচে কানাচে। সহজ সরল মানুষের পেছনেই পড়ে রয়েছে। কথায় আছেনা শক্তের ভক্ত নরমের জম।’
শাহিন নামের আরো একজন লিখেছেন, ‘এই শিশুর মরদেহ যেভাবে গাছে ঝুলছিল শরীরে ধারালো অস্ত্র বিদ্ধ অবস্থায়, তা জাহিলিয়াত যুগের মতোই নির্মম! বিচারহীনতার সংস্কৃতিই আমাদের এই নির্মমতা চাক্ষুষ করতে বাধ্য করছে! এর দায় আমাদেরও।’
অভিজ্ঞ মহলের মতে, এ ধরণের নৃশংস খুনের ঘটনা সমাজে বিদ্যমান বিচার হীনতার সংস্কৃতি ও সামাজিক অবক্ষয়ের প্রত্যক্ষ ফল। কোন উন্নত দেশে নিস্পাপ শিশুদের প্রতি এমন নির্মমতা কল্পনাও করা যায় না। তাই ভাবতে হবে এ রকম অস্বাভাবিক নিষ্ঠুর ঘটনা কেন ঘটছে বার বার আমাদের সমাজে?

Share Button

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ৫৪ বার

Share Button
  • মঙ্গলবার ( সকাল ৯:৪৪ )
  • ১২ই নভেম্বর, ২০১৯ ইং
  • ১৫ই রবিউল-আউয়াল, ১৪৪১ হিজরী
  • ২৮শে কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ ( হেমন্তকাল )

সর্বশেষ খবর

Flag Counter